ম্যাপ সংশোধন আইন

ম্যাপ সংশোধন আইন

ম্যাপ এর শব্দটির উৎপত্তিগত অর্থ:

ম্যাপ শব্দটি ল্যাটিন শব্দ এটা মাপ্পা শব্দ থেকে উৎপত্তি । আর মাপ্পা শব্দের অর্থ হলো কাপড়  । যেহেতু সে সমায় ম্যাপ তৈরীর জন্য- কাপড়- চামড়া – গাছের পাতা  / ছাল ইত্যাদি ব্যাবহার করতো তাই এরুপ নামকরণ করা হয়েছে ।

 ম্যাপ এর পারিভাষিক সংজ্ঞা

ম্যাপ: সমগ্র পৃথিবী অথবা এর কোন অংশ সঠিক দিক অনুসারণ করে নির্দৃষ্ট স্কেলে সমতল কাগজের উপর অক্ষরেখা এবং দ্রাঘিম রেখা দ্বারা অঙ্কন করে তৈরী কৃত চকের ভিতরে উপস্থাপনা করা হলে তাকে ম্যাপ বলে ।

ম্যাপ কিভাবে সংশোধন করা হয়

আমরা জানি সরকার কর্তৃক ২০ থেকে ৩০ বছর পর পর রেকর্ড তথা ভূমি জরিপ করে থাকে ।  আর সরকার কর্তৃক এই জরিপ করার পিছনে অনেক কারণ আছে ।                    যেমন: বিভিন্ন প্রকারের এরিয়া নির্ধারন – খাজনা / কর নেওয়ার জন্য – মালিকানা নির্ধারণ –সকল জমির মালিকগনের মালিকানা বুঝিয়ে দেওয়া – এছাড়াও অনেক ধরনের কারণ রয়েছে । যে সকল কারণে সরকার এই ভূমি জরিপ করে থাকে

কিন্তু : আমাদের মত সাধারণ পাবলিকের কাছে নকশা / ম্যাপ হলো নিজের দাগে জমির এরিয়া নির্ধারণ । সুতারাং একটা জরিপ করার সমায় জরিপে অনেক ধরনের ভূলভ্রান্তি হয়ে থাকে । যাহার প্রভাবটা খতিয়ান এবং নকশা /ম্যাপের উপর পড়ে থাকে তখন আমরা সেটাকে বলে থাকি ভূল।  যখন খতিয়ানে ভূল হয় তখন আমরা বলি খতিয়ানের ভূল আর নকশা/ ম্যাপে ভূল হয় তখন আমরা বলে থাকি নকশার ভূল ।

সংশোধ প্রক্রিয়া:

আমরা খতিয়ানের ভূল গুলো বিভিন্ন উপায়ে আমরা সংশোধন করে থাকি কিন্তু নকশা বা ম্যাপের ভূলটা আমরা সরাসররি খতিয়ানের মতো করে সংশোধন করতে পারিনা । কেননা খতিয়ান একটা ফরমেটে আবাদ্ধ যাহা কয়েক জন মালিকের ভিতরে সিমাবদ্ধ । আর নকশা একটা স্কেলে আবাদ্ধ । যাহার মধ্যে পরিপূর্ন্য মৌজার সকল জমির মালিকগণ আবাদ্ধ সুতারাং যদি নকশা সংধোন করতে যায় তাহলে পরিপূর্ণ্য নকশা বা ম্যাপটার স্কেল এলোমেলো হয়ে হয়ে যাবে । যাহার কারণে ঐ নকশা বা ম্যাপ বাতিল বলে গণ্য হবে । তাই নকশা সংশোধন প্রক্রিয়া টা খতিয়ানের মাধ্যমে সংশোধন করা হয়।  যেমন: যদি কোনো মালিকের জমির পরিমান কম হয়েছে বলে আদালতে প্রমান করতে পারে – তাহলে তার জমিটা যে দাগে প্রবেশ করেছে সেই দাগ থেকে তার অংশ্য পরিমান জমি খতিয়ানের  মাধ্যমে রেকর্ডভূক্ত করা হয় ।এভাবে নকশা বা ম্যাপের সমস্যা সমাধান করা হয় ।

ম্যাপ সংশোধন করতে হলে করণীয় কি

1/ প্রথমে আমনার জমির নকশাটা সি-এস  থেকে বর্তমান জরিপের নকশা পর্যান্ত  সকল নকশা প্যান্টাগ্রাফ করতে হবে  এবং বাকি কাগজপত্র সঠিক থাকতে হবে ।

2/ লান্ড সার্ভে ট্রাইবুনালে মামলা করতে হবে নির্দৃষ্ট সমায়ের মধ্যে ।

3/ লান্ড সার্ভে ট্রাইবুনালে মামলার সমায় পার হযে গেলে একজন আইনজীবীর  মাধ্যমে দেওয়ানি আদালতে ঘোষনামূলক মামলা করতে হবে ।

error: Content is protected !!